Fri. Jun 18th, 2021

সিলেট টেলিগ্রাফ

সত্য প্রকাশে অবিচল

আজ শুভ অক্ষয় তৃতীয়া

1 min read

 1,439 total views,  2 views today

আজ অক্ষয় তৃতীয়া। অক্ষয় তৃতীয়ায় রোহিনী নক্ষত্র ও শোভন যোগ সবচেয়ে শুভ বলে মনে করা হয়। ধর্মীয় বিশ্বাস অনুযায়ী, অক্ষয় তৃতীয়ায় বিষ্ণুর পুজো করলে সম্পদ বৃদ্ধি হয়। একইসঙ্গে বিষ্ণু ও শিবের পুজো করলেও ফল পাওয়া যায়।

অক্ষয় তৃতীয়া মানেই  হালখাতা। এমনটা যারা ভেবে আসছেন তাঁরা নিঃসন্দেহেই ভুল ভাবছেন। হিন্দু ধর্মানুভূতির সঙ্গে গভীর যোগ রয়েছে অক্ষয় তৃতীয়ার। অক্ষয় তৃতীয়া হল চান্দ্র বৈশাখ মাসের শুক্লপক্ষের তৃতীয় তিথি। বৈদিক বিশ্বাস হল এই বিশেষ তিথিতে যে শুভ কাজ করবেন, তার ফল পাবেন অনন্তকাল। আবার ভুল করলে গুণতে হবে তার মাশুলও।
আসলে হিন্দু শাস্ত্রের বহু উল্লেখযোগ্য ঘটনাই এই তিথিতে ঘটেছে। সেই ঘটনাক্রমে চোখ রাখলেই বোঝা যায় এই দিনটির মাহাত্ম্য।পাশাপাশি আন্দাজ পাওয়া যায় কী ভাবে এই দিনটিতে সুখ ও সমৃদ্ধি পাওয়া যাবে।
এই দিনেই মহাভারত রচনা শুরু হয়েছিল। দেবাদিদেব মহাদেব এই দিন কুবেরকে অতুল সম্পদদান করেন। এই ঐশ্বর্যপ্রাপ্তি হয়েছিল সাধনার কারণেই। বিষ্ণু অবতার পরশুরামের জন্ম এই দিনে। সত্যযুগের সমাপ্তি এই দিনেই। ভগীরথ এদিন গঙ্গাকে মর্ত্যে নিয়ে আসেন। কৃষ্ণের চন্দনযাত্রাও শুরু হয় এই দিনেই। দ্রৌপদীর বস্ত্রহরণ রুখে দিয়েছিলেন কৃষ্ণ এই দিনেই। কুবেরের লক্ষ্মীলাভের ঘটনা থেকেই আজকের অক্ষয়তৃতীয়ায় লক্ষ্মীলাভের ধারণা। তাই এই দিনটিতে অনেকে লক্ষ্মীপুজো করেন। এদিন দান ধ্যানও করেন অনেকে পুণ্যের ঝুলি ভরে নেওয়ার আশায়। আবার এই দিনেই হালখাতা করেন অনেক বাঙালি ব্যবসায়ী। আসলে বিক্রেতা কিছু অর্থাগমের মধ্যে দিয়ে গোটা বছরের অর্থভাগ্য নিশ্চিত করতে চান। আর ক্রেতাও নতুন কিছু কিনে গোটাবছরের প্রাপ্তিযোগেই শিলমোহর দেন।
পুরাণ অনুযায়ী, মহাভারতে পাণ্ডবরা যখন নির্বাসনে ১৩ বছর কাটিয়ে ফেলেন, তারপর একদিন ঋষি দুর্বাসা তাঁদের আস্তানায় প্রবেশ করেন। দ্রৌপদী তাঁকে অক্ষয় পাত্রে খেতে দেন। এই আতিথেয়তায় মুগ্ধ হয়ে দুর্বাসা বলেন, ‘আজ অক্ষয় তৃতীয়া। আজ যে ছোলার ছাতু, গুড়, ফল, বস্ত্র, জল ও দক্ষিণা দিয়ে বিষ্ণুর পুজো করবে, সে সম্পদশালী হয়ে উঠবে।

Ad
সম্পাদক : যীশু আচার্য্য II স্বপ্নীল ৬৪ মির্জাজাঙ্গাল, সিলেট II ফোন: ০১৭১৯-৭৩৩৫৪৯ | Newsphere by AF themes.
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.